রুপান্তরিত করোনা ভাইরাসের এক রূপেই কাঁপছে বিশ্ব – Kolkata24x7

0
25
Print Friendly, PDF & Email

কিশোর শীল: কল্যাণীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ বায়োমেডিকাল জিনোমিক্স বা এনআইবিজি-র গবেষণা জানাচ্ছে, করোনা ভাইরাস ১১টি অবতার ধারণ করেছে। তবে এর মধ্যে রোনা ভাইরাসের এ২এ অবতার গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। ভাইরাসের এই অবতারটিই সবচেয়ে মারাত্মক।

এই A2a ভাইরাস মানবদেহের ফুসফুসের কোষকে টার্গেট করে এবং সংক্রমণ ছড়ায়। ভাইরাসটির স্পাইকে থাকা প্রোটিন মানব দেহের ফুসফুসে থাকা প্রোটিনকে কাজে লাগিয়ে জুড়ে যায় এবং করোনাকে অনেক দ্রুত সংক্রামিত করে।

A2a ছাড়াও করোনাভাইরাসের O, A2, A2a, A3, B, B1 ইত্যাদি ধরণ পাওয়া গিয়েছে।

নিউ ইয়র্ক, ইতালি, অস্ট্রেলিয়া, স্পেন, আইসল্যান্ড, ব্রাজিল, কঙ্গো এবং অন্যান্য দেশে ভাইরাসের A2a টাইপটি প্রাধান্য পেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ভারতেও এটির প্রভাব রয়েছে।

ওয়াশিংটনে B1 ধরণের প্রভাব থাকলেও নিউ ইয়র্কে A2a প্রাধান্য পায়। চিন প্রায় একমাস ধরে সিক্যুয়েন্স ডেটা জমা দিচ্ছে না বলে চিনেও A2a টাইপ প্রাধান্য পেয়েছে কিনা তা জানা যায়নি বলে খবর।

ড. পার্থপ্রতিম মজুমদার যিনি কিনা এই গবেষণার নেতৃত্বে রয়েছেন, তিনি জানাচ্ছেন, ভাইরাসের গঠনে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। পাশাপাশি তার বক্তব্য। “বর্ধিত সংক্রামকতার কারণেই অনেক দেশে A2a প্রকারের প্রভাব বেশি হয়ে উঠতে পারে” “।

উহানে চিহ্নিত ভাইরাসটির ধরণ ছিল O প্রজাতির। ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যাপক ভাবে মিউটেশন বা পরিবর্তন ঘটেছে ভাইরাসটির গঠনে। এরপর ক্রমশ বিশ্বের অন্য দেশে ছড়িয়ে পড়তে পড়তে এবং নিজেকে বদল করতে করতে A2a টাইপে এসেছে এই ভাইরাস। যা কিনা সর্বাধিক ভয়ঙ্কর। বিশ্বের মোট সংক্রমণের ৬০ শতাংশ এই টাইপের কারণেই।



Source link