মনের ধস নামছে ভয়ংকরভাবে

0
20
Print Friendly, PDF & Email

ফেরদৌস আরা। ছবি: প্রথম আলোজাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ভাষায় বলতে হয়, ‘গাহি সাম্যের গান, মানুষের চেয়ে বড় কিছু নাই, নহে কিছু মহীয়ান, নাই দেশ-কাল-পাত্রের ভেদ, অভেদ ধর্মজাতি।’ করোনার এই সময়টায় এ কথাটি বেশি মনে পড়ছে। আমরা একেকটি দেশ নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের জন্য কত কী করেছি। অথচ আমরা সবাই একই রক্ত–মাংসে গড়া মানুষ, সব মানুষের প্রতি মানুষকে যত্নবান হতে হবে—এটাই ভুলে গিয়েছিলাম। কিন্তু এখন সবাই মানুষ এবং মানবতার কথাই বলছে। পৃথিবীর সবাই একত্র ও একতাবদ্ধ মানুষকে রক্ষার জন্য।

আমরা যখন আগে প্রার্থনা করতাম, যতটা নিজের জন্য চাইতাম অপরের জন্য তার চেয়ে কম চাইতাম। এখন তো নিজের কথা ভুলে গিয়ে বলছি, আমাদের সমস্ত অসুস্থতা থেকে রক্ষা করো। করোনা এমনই এক শত্রু, এটাকে কোনোভাবে পরাস্ত করা যাচ্ছে না। এটা যদি কোনো মানবশত্রু হতো, তাকে দমনের জন্য নানা অস্ত্র তৈরি হতো। আর এখন সমগ্র মানুষ একটি ক্ষুদ্র ভাইরাসের বিরুদ্ধে বাঁচার জন্য লড়ছে।

আমার কিন্তু ভীতি বাড়ছে। উদ্বিগ্নও বাড়ছে। ঘুম আসে না। ভোররাত থেকে মাথা কাজ করে না। সারাক্ষণ টেনশন বাড়ছে। করোনাতে নয়, মনে হচ্ছে নানা অসুখে–টেনশনে মারা যাব।

ফেরদৌস আরা। ছবি: প্রথম আলোআমি এই কথাটাই বলব নজরুলের ভাষায়, ‘ব্যথিত প্রাণে দানো শান্তি, চিরন্তন, ধ্রুব-জ্যোতি।/ দুখ-তাপ-পীড়িত-শোকার্ত এই চিত যাচে তব সান্ত্বনা ত্রিভুবন-পতি।/ বেদনা যাতনা ক্লেশ মুক্ত কর, বিপদ নিবার, সব বিঘ্ন হর,/ আঁধার পথে তুমি হাত ধরো, প্রভু অগতির গতি।/ সকল গ্লানি হতে হে নাথ বাঁচাও, চিত্তে অটল প্রসন্নতা দাও।’

করোনার এই সংকটে ভীত, উদ্বিগ্ন সবাইকে সান্ত্বনা দিতে হবে। মনোবল জাগিয়ে তুলতে হবে। একটা বিরাট ধস নেমে যাচ্ছে চোখের আড়ালে। অর্থনীতির ধস তো গোনা যায়, কিন্তু মনের ধস দেখতে পাবে না কেউ। মনের ধস নামছে ভয়ংকরভাবে। সবারই নিজেদের পরিবারকে বাঁচানোর উদ্বিগ্ন বাড়ছে, ক্ষয়টাও বাড়ছে। সান্ত্বনাটা এলেই তবে এই উদ্বিগ্ন বাড়াটা কমবে। ভ্যাকসিন কিংবা ওষুধ বের না হওয়া পর্যন্ত কমবে না। তবে এ মুহূর্তে একমাত্র কাজ হচ্ছে, যে যেই ধর্মের মানুষ, মন থেকে প্রার্থনা করা। আর যে যেই কাজটি করেন, ভালোবেসে করেন।

গানের মানুষ আমি বলব, গান শোনেন বেশি করে। আমার স্বামী অনেক ব্যস্ত ছিলেন, গান শোনার সময় পেতেন না। এখন তিনি অনেক গান শোনেন। গান মানুষের মনটাকে হিল করে। গান শুধু মোটেও বিনোদন নয়, মানসিক উন্নতির বড় অবলম্বন। সুস্থ বিনোদন প্রয়োজন। সংগীত সবাইকে মানসিকভাবে বাঁচার জন্য একটি উপাদান। এটা শুধু বিলাসিতা নয়, প্রয়োজন। মানুষের মনস্তাত্ত্বিক সুস্থতার জন্য গান। গানে আস্থা আশ্রয় শান্তি পাওয়া যায়।



Source link